বেসরকারি কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষকদের একটি যৌক্তিক দাবি

sdfdssssss32er

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইউএস বিডি টাইমস :

মোঃ আলাউদ্দিন:

গত ৮ জুন ২০১৭ ইং তারিখে শিক্ষামন্ত্রণালয় কর্তৃক বেসরকারি কলেজে অনার্স ও মাস্টার্স শ্রেণীতে শিক্ষক নিয়োগও NTRCA এর মাধ্যমে হওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। আমরা অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক পরিষদ সরকারের এই যুগ ঊপযোগী সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাই। দীর্ঘ ২ যুগ পরে হলেও সরকার বুঝতে সক্ষম হয়েছে যে, অনার্স ও মাস্টার্স পর্যায়ে শিক্ষক নিয়োগের এই প্রকৃয়া  অনার্স, মাস্টার্স শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের চলমান সমস্যা সমাধানের এইটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

কিন্তু শিক্ষামন্ত্রণালয় কর্তৃক গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ণের পূর্বে ১ম থেকে ১২ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে যারা বেসরকারি এমপিওভুক্ত কলেজে অনার্স ও মাস্টার্স শ্রেণিতে বৈধভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন তাদের  দ্রুত এমপিওভুক্ত করা উচিৎ এবং নিবন্ধন প্রথার পূর্বে বৈধভাবে যারা নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন তাদেরও এমপিওভুক্ত করা যুক্তিসঙ্গত।
বর্তমানে বিভিন্ন কলেজ জাতীয়করণের পর বেসরকারি কলেজে অনার্স ও মাস্টার্স পর্যায়ে নিবন্ধিত নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক অনধিক ৩৫০০ জন হবে। এই অল্প সংখ্যক শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করেনিলে বর্তমান সরকারের আর্থিক বাজেটে কোনরকম নেতিবাচক প্রভাব পড়বেনা বলে আমাদের বিশ্বাস।

১ম থেকে ১২তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রায় ৪ লাখ প্রার্থী আছেন। এদের মধ্য থেকে যারা বৈধভাবে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন (মাধ্যমিক থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজার) তাদের প্রথমেই এমপিওভুক্ত করা প্রয়োজন। সরকারের পক্ষে উত্তীর্ণ সকল প্রার্থীদের এক সাথে হয়তো কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা সম্ভব নাও হতে পারে। তাই নিবন্ধিত ও নিয়োগপ্রাপ্তদের এমপিওভুক্তির কথা প্রথমে বিবেচনা করে পর্যাক্রমে নিবন্ধিত কিন্তু অনিয়োগপ্রাপ্তদের কথা ভাবা দরকার।

অনিয়োগপ্রাপ্তদের মধ্য থেকে অনেকেই দীর্ঘদিন বেকার না থেকে অন্যান্য পেশায় জড়িয়ে পড়তে পারেন, আবার অনেকে দেশান্তর বা ইহলোক ত্যাগকরতেও পারেন। কাজেই নিবন্ধিতদের  সঠিক সংখ্যা বেশি না হয়ে কম হতে পারে। তাই যারা নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে কর্মসংস্থান বা পেশা হিসাবে শিক্ষাকতাকেই বেছে নিয়েছেন, তাদের প্রবঞ্চনা না করে বেচেঁ থাকার ব্যবস্থা সরকারকে করে দিতে হবে। এতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর কল্যাণ হবে এবং দেশে শিক্ষার মান সমৃদ্ধ হবে। শিক্ষক বেতন না পেলে সুষ্ঠুপাঠদান সম্ভব নয়। বেতন না দিয়ে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দিলেও শিক্ষার মান উন্নয়ণ কখনোই সম্ভব নয়।

আমাদের এই যৌক্তিক দাবিটুকু সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যেন দ্রুত ববুঝতে সক্ষম হন এবং আগামী অর্থ বাজেটে সরকার যেন তাদের এমপিওভুক্ত করে শিক্ষকতার মহান পেশায় নিয়োজিত শিক্ষকদের গ্লানি কমিয়ে সরকারকে দায়ীত্ববোধের পরিচয়টুকু দেয়ার জন্য সকল শিক্ষকের পক্ষথেকে আমরা দাবি জানাই।

এবং একই সাথে বেসরকারি পর্যায়ে অনার্স ও মাস্টার্স শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগ ও NTRCA বা বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ কমিশনের মাধ্যমে হওয়ার প্রকৃয়াটি দ্রুত বাস্তবায়ণ করে্তে হবে। আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ সরকারের মাধ্যমে অচিরেই একটি সুষম শিক্ষা ব্যবস্থা দেখতে চাই।

লেখক: সহ সাধারণ সম্পাদক, কেন্দ্রীয় কমিটি
অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক পরিষদ

ইউএস বিডি টাইমস /রহমান

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>