‘কৌশলগত প্রয়োজনে শ্রীলংকাকে ব্যবহার করবে না চীন’

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইউএস বিডি টাইমস :

ভারত মহাসাগরে শ্রীলংকার কৌশলগত অবস্থানকে চীন কখনো তার কৌশলগত ও নিরাপত্তার প্রয়োজনে ব্যবহার করবে না। শ্রীলংকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত ই শিয়ানলিং এ কথা জানিয়েছেন।

কলম্বো পোতাশ্রয়ে শনিবার চীনা নৌবাহিনীর হাসপাতাল জাহাজ ‘আর্ক পিস’কে স্বাগত জানিয়ে দেশটির রাষ্ট্রদূত বলেন, হাজার বছর ধরে শ্রীলংকা তার কৌশলগত অবস্থানের সুফল ভোগ করে আসছে। কারণ সিল্ক রুটের মাঝামাঝি এই দেশের অবস্থান। এখন প্রশ্ন হলো তারা কিভাবে তাদের এই সুবিধাকে কাজে লাগাবে। এর জবাব, শান্তি ও উন্নয়নের জন্য। আর সে কারণে চীন দেশটির অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নের প্রতিটি প্রচেষ্টাকে সমর্থন করে যাবে। শ্রীলংকাবাসীর এটাই বেশি প্রয়োজন। শ্রীলংকার এই সুবিধাকে চীন কখনেই তার কৌশলগত ও নিরাপত্তা প্রয়োজনে ব্যবহার করবে না।

রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, বেইজিং শ্রীলংকার উন্নয়নকে সমর্থন করে। চীন অতীতে শ্রীলংকায় যেসব কাজ করেছে সেগুলো খতিয়ে দেখা যেতে পারে। এখানে অবকাঠামো, হাসপাতাল, বিমানবন্দর, পোতাশ্রয় নির্মাণ করেছে। চীনের কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি অনুদান ও আর্থিক সহায়তা পওয়া প্রথম দেশ শ্রীলংকা।

শিয়ানলিং বলেন, শ্রীলংকায় চীনের নৌ বা অন্য কোনো সেনা নেই। শ্রীলংকায় চীনের কোনো গোয়েন্দা নেই। চীনা কূটনীতিকরা ছাড়া আর কেউ নেই।

তবে, হ্যাঁ, দেশটিতে চীনের অনেক সিইও, প্রকৌশলী, ব্যবসায়ী, শিক্ষক, প্রফেসর রয়েছেন। তারা শ্রীলংকা ও চীনের সম্পর্কটি জোরদারের জন্য কাজ করছেন। তারা শ্রীলংকাকে সহায়তা করছেন, এই দ্বীপরাষ্ট্রটির অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিষয়াবলীয় উন্নয়ন করছেন।

চীন যা বলে তাই করে এবং কোনো প্রতিশ্রুতি দিলে তা রক্ষা করে বলে জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, তাই শ্রীলংকা চীনের ওপর আস্থা রাখতে পারে। শ্রীলংকার সতিক্যারের বন্ধু চীন।

চীনের কাছ থেকে যুদ্ধজাহাজ কিনবে শ্রীলংকা

শ্রীলংকা নৌ বাহিনীর ওয়েস্টার্ন কমান্ডের কমান্ডার সনথ উৎপল জানিয়েছেন যে তার দেশ চীনের কাছ থেকে যুদ্ধজাহাজ কিনতে আগ্রহী। নৌবাহিনীর একটি দল প্রশিক্ষণ নিতে আগামী সেপ্টেম্বরে চীন যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানে পিপলস লিবারেশন আর্মির নেভি হসপিটাল শিফ আর্ক পিস-এর কমান্ডার রিয়াল এডমিরাল গুয়ান বাই লিন বলেন, জাহাজটি তিনদিন কলম্বো বন্দরে অবস্থান করবে এবং এসময় জনসাধারণ জাহাজটি ঘুরে দেখতে পারবে এবং চিকিৎসা সেবাও গ্রহণ করতে পারবে।

আর্ক শিপের জনবল ৩৮১ জন। ২০০৮ সালে জাহাজটি উদ্বোধনের পর থেকে এই পর্যন্ত ২৯টি দেশ সফর করেছে এবং ১৭০,০০০ নটিক্যাল মাইল পথ পাড়ি দিয়েছে। এছাড়া এ সময়ে বিভিন্ন দেশে ১২ হাজারের বেশি মানুষকে চিকিৎসা সেবা দেয় জাহাজটি।

‘শান্তির দূত’ নামে পরিচিত এই জাহাজে রোগীদের জন্য ৩০০ শয্যা রয়েছে। অপারেশন থিয়েটার রয়েছে আটটি। আছে আগুনে গুরুতরভাবে পোড়া রোগীদের জন্য ইউনিট, একটি আইসিইউ, একটি দন্তবিভাগ এবং আউট-প্যাশেন্ট সার্ভিসসহ আরো অনেক চিকিৎসা সুবিধা। অত্যন্ত সুক্ষ্ম সার্জারির ব্যবস্থাও রয়েছে এখানে।

সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর

 

ইউএস বিডি টাইমস /রহমান

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>